মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

তথ্য ও প্রযুক্তি

১. জেলার আইসিটি বিষয়ক কার্যক্রম সমন্বয়ের জন্য এ কার্যালয়ে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি কোষ (ICT Cell) নামে একটি শাখা স্থাপন করা হয়েছে।

২. জেলা ও উপজেলা আইসিটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

৩. জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন ওয়েব পোর্টাল (www.tangail.gov.bd) তৈরীর কাজ চলমান আছে যা অতি শীঘ্রই উদ্বোধন করা হবে।

৪. জনগণের সেবা প্রাপ্তির সুবিধার্থে ইতোমধ্যে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের কাযার্লয়ের ১০৬ নং কক্ষে জেলা ই-সেবা কেন্দ্র ও তথ্য প্রদান ইউনিটের সমন্বয়ে  ফ্রন্টডেস্ক (হেল্প ডেস্ক) চালু করা হয়েছে। জেলা ই-সেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর আগত সকল ধরনের আবেদন (রেকর্ডরুম হতে প্রদত্ত নকল আবেদনসহ) গ্রহণ ও নকল প্রদান করে ওয়ানস্টপ সার্ভির্স চালু করা হয়েছে।

৫. এ কাযার্লয়ের সকল শাখা হতে প্রদত্ত সেবাসমূহ জেলা ই-সেবা কেন্দ্র/ফ্রন্টডেস্ক হতে প্রদানের লক্ষ্যে ওয়ানস্টপ সার্ভিস ও ল্যান (Lan) চালু করার জন্য বিসিসি কতৃর্ক প্রদত্ত কার্যাদেশ মোতাবেক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট হতে এ কাযার্লয়ের অনুকূলে ৪টি ল্যাপটপ, ইউপিএসসহ ১০ টি পিসি, ১০টি কম্পিউটার টেবিল/১০ টি চেয়ার (অটবি) ও ১টি প্রজেক্টর সরবরাহ করা হয়েছে।

৬. জেলা ই-সেবা কেন্দ্রে পত্র রিসিভের জন্য ৪টি ক্যানন স্ক্যানার ও ১ টি এইচপি প্রিনটার এর সরবরাহ গ্রহণ করা হয়েছে।

৭. লিডর্স কর্পোরেশন কর্তৃক ডিআইসিটিসি (কক্ষ নং ২১২) তে সার্ভার স্থাপন করে ১ম পযার্য়ে ১৪ টি ও ২য় পযার্য়ে আরও ১৭টি নোডে ল্যান সম্প্রসারণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে, পরবর্তীতে জেলা প্রশাসনের অথার্য়নে আরও ১৫ টি নোডে ল্যান সম্প্রসারণ করা হয়েছে। সার্ভারের সাথে অপটিক্যাল ফাইবার এর সংযোগ দেয়া হয়েছে।

৮. জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের দৈনন্দিন ফাইলওয়ার্ক (NESS) এর কাজ যাতে নিরবচ্ছিন্নভাবে চলতে পারে সেলক্ষে বিটিসিএল এর ব্যাকবোনের বাইরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক ফাইবার এট হোম নামক প্রতিষ্ঠান এর নিকট হতে বিকল্প হিসেবে ২এমবিপিএস গতি সম্পন্ন অপটিক্যাল ফাইবার এর সংযোগ প্রদান করা হয়েছে।

৯. দৈনন্দিন ফাইলওয়ার্ক এর কাজ ডিজিটাল পদ্ধতিতে করার জন্য ই-ফাইলিং চালু করা হয়েছে। সেলক্ষ্যে এ কার্যালয়ের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে ন্যাশনাল ই-সার্ভিস সিস্টেম (NESS) এর মাধ্যমে ই-ফাইলিং এর কাজ চালু করা হয়েছে।

১০. চারটি উপজেলায় (টাঙ্গাইল সদর, ভূঞাপুর, সখিপুর, বাসাইল) কমিউনিটি ই-সেনটার চালু করা হয়েছে।

১১. এ জেলার ১০৯টি ইউনিয়নে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। ডাচ্ বাংলা মোবাইল ব্যাকিং লিমিটিড এর সহযোগিতায় টাঙ্গাইল জেলার সকল ইউআইএসসিতে অনলাইন মোবাইল ব্যাকিং সেবা প্রদান শুরু হয়েছে।

১২. জনগণ যাতে সহজে, অল্প পরিশ্রমে পল্লী বিদ্যুৎ বিল প্রদান করতে পারে সে লক্ষেইউআইএসসিগুলো হতে পল্লী বিদ্যুতের বিল পরিশোধের প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছে।

১৩. এ জেলার ৯ টি পৌরসভায় পিআইএসসি (পৌরসভা তথ্য ও সেবা কেন্দ্র)স্থাপন করা হয়েছে।জি টু জি পদ্ধতিতে বিদেশ কর্মী প্রেরণের লক্ষে পিআইএসসি হতে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন এর কাজ সফলতার সাথে সম্পন্ন করা হয়েছে।

১৪. জেলা তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি কেন্দ্র (ডিআইসিটিসি) ও উপজেলা তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি কেন্দ্র (ইউআইসিটিসি) স্থাপন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ডিআইসিটিসি কক্ষের জন্য একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র, ০২ টি স্যামসং প্রিনটার এবং ০২ টি ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং বিভিন্ন ধরনের ফার্নিচার এর সরবরাহ গ্রহণ করা হয়েছে।

১৫. আটষট্টি (৬৮) টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (স্কুল/কলেজে) বিসিসি কর্তৃক কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে এবং আরও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনের কাজ অব্যাহত আছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস এর কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিতকরণের লক্ষে জেলা পর্যায়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং উপজেলা কমিটি গঠন চলমান আছে। কম্পিউটার শিক্ষক/ সহকারী শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

১৬. জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২০১০-২০১১ অর্থ বছরের বাজেট বরাদ্দ হতে এ কার্যালয়ের নেজারত শাখার মাধ্যমে ইউপিএসসহ ১৬ টি ডেস্কটপ, ৪টি ল্যাপটপ, ১০টি প্রিনটার, ৬টি ফটোকপি মেশিন, ২টি মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, ২ টি কালার টেলিভিশন, ১টি ডুপিস্নকেটিং মেশিন, ২টি পিএ সিস্টেম ২৪ লাইন বিশিষ্ট ইনটারকম, ১টি ডিজিটাল ক্যামেরা ক্রয় করা হয়।

১৭. প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগসহ অন্যান্য ঊর্দ্ধতন অফিস ও মাঠপ্রশাসনের বিভিন্ন সরকারী অফিসের সাথে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত কার্যাদেশ মোতাবেক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট হতে এ কার্যালয়ের অনুকূলে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি পাওয়া গেছে এবং সফলভাবে ইন্সস্টল করা হয়েছে। গত ১৬ জুলাই ২০১২ তারিখ মহামান্য রাষ্ট্রপতি টাঙ্গাইলসহ অন্যান্য ১৯ টি জেলার জেলা প্রশাসকের সাথে সাথে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে আদম শুমারী ২০১১ এর রিপোর্ট প্রকাশ করেন।

১৮. জি টু জি পদ্ধতিতে বিদেশ কর্মী প্রেরণের লক্ষে ইউআইএসসি /পিআইএসসি হতে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন এর কাজ সফলতার সাথে সম্পন্ন করা হয়েছে এবং এ বিষয়ে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এটুআই প্রোগ্রাম হতে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

১৯. ‘‘ডেভেলপমেন্ট অব ন্যাশনাল আইসিটি ইনফ্রা-নেটওয়ার্ক ফর বাংলাদেশ গভর্ণমেন্ট (বাংলাগভনেট) শীর্ষক প্রকল্পে দায়িত্বপ্রাপ্ত  কোরিয়ান ঠিকাদারী  প্রতিষ্ঠান  Skc&c Co.Ltd এর জেলা, উপজেলা পর্যায়ে কার্যক্রম পরিচালনাকল্পে এ জেলায় জেলা আইসিটি সেনটার এবং সখিপুর উপজেলায় উপজেলা আইসিটি সেনটার স্থাপনের কাজ চলমান আছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত  কোরিয়ান ঠিকাদারী  প্রতিষ্ঠান Skc&c Co.Ltd কর্তৃক সাইট দুটি ভিজিট করা হয়েছে এবং ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক জেলা ও উপজেলার জন্য সার্ভার র‍্যাক, ব্যাটারী কেবিনেটসহ অন্যান্য মালামাল সরবরাহ করে ইন্সটল করা হয়েছে।

২০. এ কার্যালয়ে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কম্পিউটারসহ আইসিটি বিষয়ক অন্যান্য ট্রেনিং প্রদানের লক্ষে একটি কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় কম্পিউটার ও ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি চেয়ে এটুআই প্রোগ্রাম বরাবর পত্র দেয়া হয়েছে কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রয়োজনীয় কম্পিউটার ও ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি পাওয়া যায়নি বলে ল্যাব স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।

২১. ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভুমি জরিপ ও রেকর্ড প্রণয়ন এবং সংরক্ষণ (১মপর্যায়: বিদ্যমান মৌজা ম্যাপস এবং খতিয়ানসমূহের কম্পিউটারাইজেশন) এর লক্ষ্যে এ কার্যালয়ের রেকর্ডরুম শাখা কর্তৃক উন্মুক্ত টেন্ডারের মাধ্যমে ১৩ টি ল্যাপটপ ও ২ টি প্রিনটার ক্রয় করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা এবং ট্রেনিং এর পর আউটসোসিং এর মাধ্যমে কাজ শুরু করা হবে।

২২. ইনফো-সরকার প্রকল্পের আওতায় এ জেলার সকল উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে একজন করে টেকনিশিয়ান নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।

২৩. হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় এ জেলায় উক্ত বিষয়ে অবহিতকরণ সভা আয়োজন করা হয়েছে। এ জেলায় হাইটেক পার্ক স্থাপনের জন্য হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করে পত্র দেয়া হয়েছে।

২৪. এ জেলায় ও সকল উপজেলায় ডিজিটাল ইনোভেশন টিম গঠন করা হয়েছে।

২৫. সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানের লক্ষ্যে কর্মকর্তাদের নামের তালিকা মন্ত্রণালয় বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে।

২৬. তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় এ জেলার মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার্থীদেরনিয়ে উক্ত প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটার ল্যাবে ৫ (পাঁচ) দিন ব্যাপী এনড্রয়েড প্লাটফর্মে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নির্মাণ (Developing Mobile Apps) এর উপর প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

২৭. টাঙ্গাইল জেলার ৯৫টি ইউআইএসসিতে সোলার প্যানেল সরবরাহ করা হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ২৬/০২/২০১৫